ঢাকারবিবার , ২ জুলাই ২০২৩
  1. 1
  2. avi feb
  3. Belugabahis bahis sitesi feb
  4. blackjack-deluxe
  5. bonan feb
  6. casinomhub giris
  7. goo feb
  8. last-news
  9. mars feb
  10. Marsbahisgiris feb
  11. New Post
  12. News
  13. polskie-kasyna
  14. আইন-আদালত
  15. আন্তর্জাতিক

ঈদের ছুটিতে আশানুরূপ পর্যটক নেই কুয়াকাটায়, হতাশ ব্যবসায়ীরা

কে এম তারেক অপু
জুলাই ২, ২০২৩ ২:৫২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সমাচার ডেস্ক // প্রতিবছরের ন্যায় এবারও পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটিকে কেন্দ্র করে কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকতে ভিড় হওয়ার কথা থাকলেও আশানুরূপ পর্যটক না হওয়ায় হতাশ ব্যবসায়ীরা । হোটেল-মোটেল কর্তৃপক্ষরা বলছেন কুয়াকাটায় পর্যটক আসলেও হোটেল বুকিং নেয়নি অধিকাংশ পর্যটক। যার জন্য অধিকাংশ হোটেল পরে আছে ফাঁকা।

রোববার (২ জুলাই) সৈকত এলাকায় দেখা গেছে অসংখ্য ঘুরতে আসা মানুষ তবে তাঁর বেশীরভাগ স্থানীয় দর্শনার্থী। সরেজমিন দেখা যায়, তাদের অনেকেই নেচে-গেয়ে আনন্দে মেতেছেন। অনেকে আবার প্রিয়জনদের সঙ্গে সেলফি তুলছেন। কেউবা সমুদ্রস্নানে ব্যস্ত। কেউবা উপভোগ করছেন প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। অনেকেই ঘুরছেন ঘোড়ায় চড়ে কিংবা ওয়াটার বাইকে অথবা স্পিডবোটে। এক কথায় বলা চলে সমুদ্রের পানিতে উল্লাসে মেতেছেন আগত পর্যটকরা।

এদিকে পর্যটন এলাকার ব্যবসায়ীদের দাবি, বিগত বছরগুলোর তুলনায় এ বছর কম সংখ্যক পর্যটক এসেছেন কুয়াকাটায়। অন্যদিকে পর্যটকরা অভিযোগ করেন, এই এলাকার খাবার হোটেলগুলোয় অন্য সময়ের তুলনায় খাবারের দাম অনেক বেশি রাখা হচ্ছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, এবার ঈদের ছুটিতে প্রথম শ্রেণির আবাসিক হোটেল-মোটেল ও রিসোর্টগুলো বুকিং থাকলেও দ্বিতীয়-তৃতীয় শ্রেণির আবাসিক হোটেলগুলোর বেশির ভাগই খালি। কিন্তু ঝিনুক, আচার, শুঁটকিসহ অন্যান্য ব্যবসায়ীদের অভিমত, বেচাকেনা মোটামুটি ভালো হচ্ছে। এছাড়া জিরো পয়েন্টের খাবার হোটেলগুলোর বেচা বিক্রি মোটামুটি ভালো হলেও আশপাশের খাবার হোটেল গুলোতে আশানুরূপ খাবার বিক্রি হয়নি বলে দাবি তাদের।

যশোর থেকে আশা সেলিম চৌধুরী বলেন, ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে পরিবার-পরিজন নিয়ে কুয়াকাটা ভ্রমণে এসেছি। এখানকার প্রকৃতি ও পরিবেশ সকলে মিলে উপভোগ করছি।

মাদারীপুর থেকে আসা পর্যটক সাইদুর রহমান বলেন,কুয়াকাটার সবকিছু ভালো। বন্ধু-বান্ধব নিয়ে এখানে এসে আনন্দ করেছি। তবে খাবার হোটেলগুলোতে খাবারের দাম খুব বেশি,কিন্তু সেটা নিয়ে আমাদের অভিযোগ নেই। অভিযোগ একটাই খাবারের মান আরো ভালো হওয়া উচিত।

আবাসিক হোটেল সাগর এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুদ পারভেজ সাগর বলেন, আমাদের হোটেলের অনেক কক্ষ এখনো ফাঁকা। তিনি দাবি করেন, প্রথম শ্রেণির আবাসিক হোটেলগুলোতে পর্যটক থাকলেও দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণির হোটেলের অধিকাংশ কক্ষই খালি।

ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অফ কুয়াকাটা (টোয়াক)প্রেসিডেন্ট রুমান ইমতিয়াজ তুষার বলেন,প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও কুয়াকাটায় পর্যটক এসেছেন।তবে এদের মধ্যে অনেক পর্যটক স্থানীয়।যার জন্য প্রথম শ্রেণীর হোটেল ব্যতীত কুয়াকাটার অধিকাংশ হোটেলই ফাঁকা।

কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ জানান, ঈদুল আজহার ছুটিতে আসা পর্যটকদের নিরাপত্তা ও সেবায় ট্যুরিস্ট পুলিশ সতর্ক রয়েছে। সৈকত এলাকাসহ দর্শনীয় স্পটগুলোতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি রয়েছে। কোনো রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। পর্যটকরা নির্বিঘ্নে ঘোরাঘুরিসহ সমুদ্রে গোসল ও আনন্দ উপভোগ করছেন।

 

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।